অসহায়দের পাশে দাঁড়ানোর এটাই শ্রেষ্ঠ সময়-আ.লীগ নেতা শেখ রনি

করোনা ভাইরাস মানবসমাজ ও মানবসভ্যতাকে এক অদৃশ্য শত্রুর মুখোমুখী এনে দাঁড় করিয়েছে। এই প্রাণঘাতী ভাইরাস এত দ্রুত বিশ্বময় ছড়িয়ে পড়েছে যে, অতীতে আর কোনো ভাইরাসের এমন আগ্রাসীরূপ দেখা যায়নি। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহানে এর প্রাদুর্ভাব শুরু হয়। দ্রুততা বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা ১১ মার্চ একে মহমারী ঘোষণা করে। বৈশ্বিক মহামারী হিসেবে করোনা এখন বিশ্বজুড়েই মহা আতঙ্কের নাম। এ পর্যন্ত ২১০টি দেশে এর বিস্তৃতি ঘটেছে।

করোনা ভাইরাসের কারণে প্রভাব পড়েছে খেটে খাওয়া নিম্ন মধ্যবিত্ত মানুষের মাঝে। মানুষ গুলোর মুখে আহার তুলে দিতে দিনরাত কাজ করছেন গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের অন্যতম সদস্য, ব্যবসায়ী সমাজসেবক আলহাজ্ব শেখ রনি আহম্মেদ করোনার মাঝেও অসহায়দের জন্য নিয়মিত কাজ করছেন

 

বুধবার (২৯ এপ্রিল) গভীর রাত পর্যন্ত মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণের পর বৃহস্পতিবার ভোর থেকে স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের সাথে নিয়ে সদর উপজেলা বেলগাছি গ্রামে দুই কৃষকের ৩ বিঘা জমির ধান কাটেন।

আ.লীগ নেতা শেখ রনি বলেন, দেশে করোনা রোগী প্রথম সনাক্ত হওয়ার পর থেকে মানবসেবায় কাজ করার চিন্তা করি। এলাকা জীবাণুমুক্ত করার জন্য দুই বেলা ব্লিচিন পাউডার মিশ্রিত পানি ছিটায়। সাধারণ মানুষদের করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সচেতন করতে নানা প্রচার-প্রচারণা শুরু করি। বাইসাইকেল চালিয়ে শহরে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করি। কর্মহীন মানুষের মাঝে ত্রাণ পৌঁছে দেই বাড়ি বাড়ি গিয়ে। যেন একটি মানুষও না খেয়ে না থাকে।

রোজার মাস শুরু হওয়ার পর থেকে প্রতিদিন নিজের সেচ্ছাসেবক ও নিজে কাঁধে করে নিয়ে যান ত্রাণ সামগ্রী।

তিনি ব্যাক্তিগত তহবিল থেকে প্রথম ধাপে ১ হাজার ৮ শত পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরন করেছেন । প্রতিটি পরিবারকে ২৫ কেজি চাল ৩ কেজি ডাল বিতরণ করেন ।

২য় ধাপে ৩ হাজার মুসলিম পরিবারের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরন  এবং ঈদকে সামনে রেখে প্রতি বছরের মতো এবারও গরিব-অসহায় দুস্থদের মাঝে ঈদ বস্ত্র- কাপড় ও নগদ টাকা বিতরণ করছেন।