সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ ও মাদকমুক্ত ওয়ার্ড চান কাউন্সিলর প্রার্থী আল-আমিন ইসলাম

কাউন্সিলর প্রার্থী আল-আমিন ইসলাম

আরিফুল হক আরিফ : আসন্ন গোপালগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে নির্বাচনী এলাকাগুলোতে এখন উৎসবের আমেজ। প্রচার-প্রচারণা ও গণসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থী ও সমর্থকরা।
পৌরবাসীর উন্নয়নে নানা প্রতিশ্রুতি নিয়ে ছুটছেন ভোটারদের ঘরে ঘরে। যোগ্য ও সৎ প্রার্থী নির্বাচনের হিসাব-নিকাষের আলোচনায় ব্যস্ত ভোটাররাও।

নির্বাচনকে ঘিরে পুরো গোপালগঞ্জ জুড়ে উৎসবের আমেজ। চায়ের দোকান থেকে শুরু করে সব জায়গায় চলছে নির্বাচনী আলোচনা। ভোটাররা করছেন চুল চেরা বিশ্লেষণ।
আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গোপালগঞ্জ পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ২য় বারের মতো প্রার্থীতা ঘোষণা করেছেন বর্তমান কাউন্সিলর আল-আমিন ইসলাম।

জনসাধারণের মন জয় করতে ও বিজয়ী হওয়ার লক্ষ্যে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ভোট প্রার্থনা করছেন তিনি। সেবা ও নাগরিক সুবিধা সমন্বিত মডেল ওয়ার্ড গড়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন আল-আমিন ইসলাম।

তিনি জানান,কাউন্সিলর হতে চাই নিজের জন্য নয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে, মাদকমুক্ত সমাজ গড়তে। ৯নং ওয়ার্ডকে আদর্শ ওয়ার্ড হিসেবে গড়তে। কাউন্সিলর হয়ে অসহায় মানুষের দ্বারপ্রান্তে গিয়ে তাদের কষ্ট ভাগাভাগি করতে।’

এরই মধ্যে পৌরসভার ৯নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থীরা তাদের নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা শুরু করেছেন।ইতিমধ্্েয সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ব্যাপক প্রচার- প্রচারণা শুরু করেছে।

প্রচারণার শীর্ষে নাম উঠে এসেছে যুব সমাজের আস্থাভাজন বর্তমান কাউন্সিলর মো.আল আমিন ইসলাম । বর্তমানে ওয়ার্ডবাসীর মন জয় করে আস্থাভাজন কাউন্সিলর হিসেবে এরই মধ্যে পরিচিতি লাভ করেছেন।
এ তরুণ কাউন্সিলর বলেন, আগামী নির্বাচনে আমি আবারো জয়ী হলে তরণ প্রজন্মকে সঙ্গে নিয়ে ওয়ার্ডটিকে একটি আদর্শ ওয়ার্ড হিসেবে গড়ে তোলার কাজ করবো। পরিকল্পিত ও পরিচ্ছন্ন ওয়ার্ড গঠনে বিগত দিনে যেমন কাজ করেছি আগামীতে সুযোগ পেলে আবার ও করতে চাই। পশাপাশি বর্তমান সরকারের চলমান উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখে আধুনিক শিক্ষাবান্ধব ও পরিচ্ছন্ন ওয়ার্ড হিসেবে ৯নং ওয়ার্ডকে গড়ে তুলতে চাই।

আল আমিন ইসলাম আরো জানান, নির্বাচিত হলে নির্বাচিত মেয়রের সহযোগীতায় প্রবীণ বা বয়স্কদের জন্য কাজ করা , মশা নিধন, ইভটিজিং এর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ ও জলাবদ্ধতা নিরসন করবো। বর্তমানে মাদকের করাল গ্রাসে ধ্বংস হচ্ছে তরুণ সমাজ। ওয়ার্ডবাসী যদি আমাকে আবারো নির্বাচিত করেন তাহলে মাদকের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান থাকবে। ড্রেনেজ ব্যবস্থা, রাস্তাঘাট সংস্কারে নিয়মিত তদারকি থাকবে। বেকারদের কর্মসংস্থানের উদ্যোগ নেওয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, এই করোনাকালীন সময়ে শুরু থেকেই অসহায় মানুষের পাশে ছিলাম, যতটা পেরেছি তাঁদের সহযোগিতা করেছি। দীর্ঘ দিন ধরেই এলাকার মানুষের সুখে-দুঃখে পাশে আছি এবং থাকব। আবারো জনপ্রতিনিধি হিসেবে মানুষের সেবক হয়ে কাজ করার সুযোগ চাই।