ম্যাজিস্ট্রেট আসার খবরে বিয়ে না করেই পালালেন বর!

এক স্কুলছাত্রীর বাল্যবিয়ে বন্ধ করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

অনলাইন ডেস্ক: নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নে অভিযান চালিয়ে এক স্কুলছাত্রীর (১৬) বাল্যবিয়ে বন্ধ করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসময় অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়েকে বিয়ে দেওয়ার অপরাধে কনের বাবাকে পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয়েছে। ম্যাজিস্ট্রেট আসার খবর পেয়ে রাস্তা থেকেই পালিয়েছে বর ও বরযাত্রী।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে লক্ষণপুর গ্রামের তফাদারের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, সপ্তম শ্রেণিতে পড়ুয়া ওই ছাত্রী বর্তমানে লেখাপড়া বন্ধ। সে বাড়িতে থাকত। পারিবারিকভাবে পাশ্ববর্তী বদলকোর্ট ইউনিয়নের তার বিয়ে ঠিক করা হয়। আজ বিয়ের দিন ধার্য্য করা হয়।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে চাটখিল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু সালে মোহাম্মদ মোসা অভিযান চালান। ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানের খবর পেয়ে রাস্তা থেকে পালিয়ে যায় বর ও বরযাত্রীরা।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী হাকিম আবু সালে মোহাম্মদ মোসা বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মেয়েকে বাল্যবিয়ে দেওয়ার অপরাধে তার বাবা আলি আহম্মদকে পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয়েছে। একইসঙ্গে ১৮বছরের আগে মেয়েকে বিয়ে দিবেনা এ মর্মে পরিবারের কাছ থেকে অঙ্গীকার নামা নেওয়া হয়েছে।