বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে ১১-২০ গ্রেডের সরকারি চাকুরিজীবী কেন্দ্রীয় নির্বাহী ফোরামের শ্রদ্ধা

১১ – ২০ গ্রেডের সরকারি চাকুরিজীবীদের সম্মিলিত অধিকার আদায় ফোরাম এর নবনির্বাচিত ১২১ সদস্য বিশিষ্ট কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের উদ্যোগে ০৬ মার্চ শুক্রবার সকাল ৭ ঘটিকায় ধানমন্ডি ৩২ নাম্বার¯’ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক ও শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন এবং দুপুর ২ টায় গোপালগঞ্জ টুঙ্গিপাড়া জাতির পিতার সৌধ সমাধিতে পুষ্পস্তবক ও শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন। এসময় কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সাথে বিভাগ, জেলা, উপজেলা নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন দপ্তরের ১১-২০ গ্রেডের কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন ।

শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন শেষে মুজিব বর্ষের সফলতা কামনা করে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। পরে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা পরিষদ হল রুমে কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের পরিচিতি সভা ও শপথ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। পরিচিতি সভা শেষে কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সভাপতি জনাব মোঃ মিরাজুল ইসলাম মুজিব বর্ষে চলমান বেতন বৈষম্য নিরসনসহ ৮ দফা দাবী বাস্তবায়নে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর সুযোগ্য কন্যা, গণতন্ত্রের মানষকন্যা, মাদার অব হিউম্যানিটি, শ্রমিক কর্মচারীদের আস্থার প্রতিক, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, জন নেত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেন ।

অনুষ্ঠানে বক্তরা সকলের জ্ঞ্যাতার্থে ৮ দফা দাবী ও বিগত দিনে পালনকৃত বিভিন্ন কর্মসূচী সমূহ তুলে ধরেন।
যার মধ্যে ২০১৫ সালে প্রদত্ত ৮ম পে স্কেল সংশোধন সহ বেতন বৈষম্য নিরসন করে গ্রেড অনুযায়ী বেতন স্কেলের পার্থক্য সমহারে নির্ধারণ ও গ্রেড সংখ্যা কমানো। এক ও অভিন্ন নিয়োগ বিধি বাস্তবায়ন করা। সকল পদে পদোন্নতি বা ০৫ (পাঁচ) বছর পর পর উ”চতর গ্রেড প্রদান করা। (ব্লক পোষ্ট নিয়মিতকরণ করা)। টাইম স্কেল, সিলেকশন গ্রেড, পূর্ণবহাল সহ বেতন জ্যেষ্ঠতা বজায় রাখা। সচিবালয়ের ন্যায় পদবী ও গ্রেড পরিবর্তন করা। সকল ভাতা বাজার চাহিদা অনুযায়ী সমন্বয় করা।  বেতনভোগীদের জন্য রেশন, ১০০% পেনশন চালু সহ পেনশন গ্রাচুইটির হার ১ টাকা সমান ৫০০ টাকা করা। কাজের ধরণ অনুযায়ী পদের নাম ও গ্রেড একিভূত করা।

এ সময় বক্তরা বলেন, ১১ থেকে ২০ গ্রেডে এই বঞ্চিত লক্ষ লক্ষ কর্মচারীদের বাদ দিয়ে দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করা সম্ভব নয়। এসকল দাবী বাস্তবায়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষনে গত ০৬/০৯/২০১৯ খ্রি. তারিখে জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করি। তার আলোকে গত ৩০/০৯/২০১৯ খ্রি. তারিখে ৬৪ জেলার জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারক লিপি প্রদান করি। এর পরে গত ১৬/১০/২০১৯ খ্রি. তারিখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক গঠিত জাতীয় বেতন বৈষম্য দূরীকরণ সংক্রান্ত মন্ত্রী সভা কমিটির সদস্যদের দপ্তরে স্মারক লিপি প্রদান করি। এর পরে এখন পর্যন্ত বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মাননীয় মন্ত্রী ও মাননীয় সংসদ সদস্য ও সংসদের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত স্থায়ী কমিটির সভাপতি সহ প্রায় ১০০ জনের অধিক সংসদ সদস্য মহোদয়কে এ সংক্রান্ত স্মারকলিপি প্রদান সহ গত ২৪/০২/২০২০ খ্রি. তারিখে জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করি। ৮ দফা দাবী বাস্তবায়নে মহান জাতীয় সংসদে গত ১৬ ও ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২০ খ্রিঃ প্রস্তাব উত্থাপিত হয় এবং ০৭/০২/২০২০ খ্রি. তারিখে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করি। কিন্ত অদ্যবধি সরকারের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে কোন দৃশ্যমান পদক্ষেপ নেয়া হয়নি।

শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন ও পরিচিতি সভা শেষে বঙ্গবন্ধুর পূন্যভূমি টুঙ্গিপাড়ার পবিত্র মাটিতে দাঁড়িয়ে বঙ্গবন্ধুর কন্যার প্রতি আকুল আবেদন প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীদের চলমান বেতন বৈষম্য নিরসনসহ ৮ দফা দাবী বাস্তবায়ন করে কর্মচারীদের মনের পূঞ্জিভূত ক্ষোভ নিরসনে পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন।

উক্ত কর্মসূচীতে উপ¯ি’ত ছিলেন নবনির্বাচিত কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ, মহানগর, বিভাগ, জেলা, উপজেলা ও বিভিন্ন পেশাজীবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এছাড়াও উপ¯ি’ত ছিলেন ১১ – ২০ গ্রেডের সকল স্তরের কর্মচারীবৃন্দ এবং প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।
শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন ও পরিচিতে সভা শেষে কেন্দ্রীয় সভাপতি জনাব মোঃ মিরাজুল ইসলাম এসব দাবী বাস্তবায়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আশু সু-দৃষ্টি কামনা করেন এবং বৈষম্যহীন সমাজ ব্যব¯’া তথা রাষ্ট্র গঠনে বঙ্গবন্ধুর লালিত স্বপ্ন পূরনে ১১ – ২০ গ্রেডের কর্মচারীদের অব্যাহত অংশিদারিত্ব নিশ্চিত করতে চলমান বেতন বৈষম্য নিরসন সহ ৮ দফা দাবী বাস্তবায়নের জোর দাবী জানান।