1. admin@tungiparanews.com : নিউজ ডেস্ক : নিউজ ডেস্ক
  2. akjoy20@gmail.com : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:০৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
কোটালীপাড়ায় কলেজছাত্রীকে ইভটিজিং করায় ৪ বখাটের বিরুদ্ধে মামলা গোপালগঞ্জে বাক প্রতিবন্ধী জামিলকে রিক্সা দিলেন মামাস কাঠি ইউপি নির্বাচন : সম্ভাব্য প্রার্থী শেখ রোমানের পথসভা বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে গোপালগঞ্জ রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটের নব নির্বাচিত কমিটির শ্রদ্ধা ডিডিজেএফ এর উদ্যোগে ‘হাওড় উৎসব’ অনুষ্ঠিত টুটুল চৌধুরীকে পুনরায় ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায় ইউনিয়নবাসী গোহালায় নৌকা প্রতীক চান আওয়ামীলীগ নেতা শেখ ইকবাল গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় বিয়ে বাড়িতে হামলা : বাড়ি ঘর ভাংচুর, লুটপাট গোপালগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যানের প্রতিবাদ সংবাদ সম্মেলন চিড়িয়াখানা খুলতে পারে ২৫ আগস্টের মধ্যে

বঙ্গবন্ধুর হত্যাকান্ড একটি আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র

অনলাইন ডেস্ক:
  • আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১৯ আগস্ট, ২০২১

বাংলাদেশ আওয়আমী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও গোপালগঞ্জ সদর আসনের এমপি শেখ ফজলুল করিম সেলিম বলেছেন, পাকিস্তানিরা বিভিন্ন সময় বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পরিকল্পনা করেছিল কিন্তু পারেনি। সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করেছিল বাংলার কিছু মীরজাফর। বঙ্গবন্ধুর হত্যাকান্ড ছিল একটি আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র।।

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে ‘বঙ্গবন্ধু কাল থেকে কালান্তরে’ শীর্ষক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় যুক্ত হয়ে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন ।
বুধবার (১৮ আগস্ট) রাত ৮টায় বশেমুরবিপ্রবি’র উপাচার্য ড. এ. কিউ. এম. মাহবুবের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা শুরু হয়। চলে রাত ১০ টা পর্যন্ত। এতে মুখ্য আলোচক ছিলেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. শরীফ এনামুল কবির, মূল প্রবন্ধ উপস্থাপক করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল, স্বাগত বক্তব্য দেন বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. মো. কামরুজ্জামান। এছাড়াও অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ যুক্ত ছিলেন। বশেমুরবিপ্রবি’র শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড. মো. আবু সালেহ অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন।।

শেখ ফজলুল করিম সেলিম আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন সাধারণ মানুষের মুক্তির পক্ষে, শোষিত মানুষের পক্ষে। বঙ্গবন্ধুর শারীরিক মৃত্যু হয়েছে কিন্তু তার আদর্শ ও ত্যাগ এখনো উজ্জীবিত। তিনি তরুণ প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুকে জানার এবং তার আদর্শ ধারণ করার আহ্বান জানান।
মূল প্রবন্ধ উপস্থাপক অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল বলেন, বঙ্গবন্ধু একটি স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র উপহার দিয়েই দায়িত্ব শেষ মনে করেননি; অর্থনৈতিক বিপ্লব, ভারতের সাথে সীমান্ত বিরোধ নিষ্পত্তি, দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর জন্যে কাজ করে গিয়েছিলেন। তিনি ভৌগোলিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক স্বাধীনতা নিশ্চিত করে গেছেন। সেই পথ ধরেই বাংলাদেশ অগ্রসর হচ্ছে, বিধায় তিনি যুগ থেকে যুগান্তরে, কাল থেকে কালান্তরে বাঙালি জাতির মুক্তির দূত হয়ে থাকবেন।।

মুখ্য আলোচক অধ্যাপক ড. শরীফ এনামুল কবির বলেন, বঙ্গবন্ধু মানেই অপশক্তির কাছে মাথা না নোয়ানো। তিনি ছিলেন উদার মনের মানুষ। বঙ্গবন্ধু হত্যা গভীর ষড়যন্ত্র। আর তিনি ভুল করেছিলেন বাংলার সেই ষড়যন্ত্রকারীদের বিশ্বাস করে।।

আলোচনা সভার সভাপতি ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এ. কিউ. এম. মাহবুব বলেন, ষড়যন্ত্রকারীরা ভেবেছিল বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করলেই সব শেষ হয়ে যাবে, কিন্তু শেষ হয়নি। তিনি একটি স্বাধীন সার্বভৌম দেশ এবং একজন সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনাকে রেখে গেছেন। তবে বঙ্গবন্ধু, বঙ্গমাতাকে নিয়ে লেখনি অনেক কম। বিশেষত গবেষণাধর্মী লেখা অতীব প্রয়াজন। এক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে এগিয়ে আসা উচিত।।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর